শিক্ষার্থীদের জন্য ওয়ালটনের নতুন মডেলের ল্যাপটপ

এবার শিক্ষার্থীদের জন্য ১৪ ইঞ্চি হাই-ডেফিনিশন ডিসপ্লের দুটি নতুন মডেলের ল্যাপটপ বাজারে আনলো দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন। এতে ব্যবহার করা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিশ্বের শীর্ষ আইসিটি ব্র্যান্ড ইনটেলের শক্তিশালী কোয়াড কোর প্রসেসর। অন্যান্য আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের তুলনায় ওয়ালটনের নতুন মডেলের ল্যাপটপ দামেও অনেক সাশ্রয়ী। মূলত, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের ক্রয় সক্ষমতার কথা বিবেচনা করেই বাজারে ছাড়া হয়েছে এই ল্যাপটপ।

বৃহস্পতিবার (১৯ শে জানুয়ারি, ২০১৭) সকালে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় ওয়ালটন মেগা প্যাভিলিয়নে ’সময় এখন বাংলাদেশের’ স্লোগানে নতুন ল্যাপটপের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। মেলায় ওয়ালটন প্যাভিলিয়নের পাশাপাশি সারাদেশে সকল ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ডেড আউলটলেটে আজ থেকে পাওয়া যাচ্ছে নতুন এই দুটি ল্যাপটপ। যার দাম নির্ধারণ করা হয়েছে যথাক্রমে ২২৯৯০ টাকা ও ২৩৯৯০ টাকা। সেই সাথে নতুন বছর ও বাণিজ্য মেলা উপলক্ষ্যে দেশব্যাপী ক্রেতাদের ওয়ালটন ব্র্যান্ডের সকল মডেলের ল্যাপটপের সঙ্গে উপহারস্বরূপ দেয়া হচ্ছে একটি আকর্ষণীয় এন্ড্রয়েড স্মার্ট ফোন ও ব্যাকপ্যাক অথবা সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ পর্যন্ত নগদ মূল্য ছাড়।
মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার এন্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের সভাপতি এবং বিজয় বাংলা ফন্টের উদ্ভাবক মোস্তফা জব্বার, ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক এসএম জাহিদ হাসান (পলিসি, এইচআরএম এন্ড এডমিন), মো. হুমায়ুন কবীর (পিআর এন্ড মিডিয়া), এডিশনাল ডিরেক্টর মো. লিয়াকত আলী, মিডিয়া উপদেষ্টা এনায়েত ফেরদৌসসহ অন্যান্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মোস্তফা জব্বার বাংলাদেশে প্রযুক্তি শিল্পের বিকাশে বিষ্ময়কর অবদানের জন্য ওয়ালটনকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘আমি ওয়ালটন কারখানা পরিদর্শনে গিয়ে দেখেছি তারা অসংখ্য উচ্চ প্রযুক্তি পণ্যের পাশাপাশি টেলিভিশনের মাদারবোর্ডও তৈরি করছে। অচিরেই কম্পিউটারের মাদারবোর্ডের মতো উচ্চ প্রযুক্তি পণ্য উৎপাদনে যাবে। ওয়ালটনের তৈরি মাদারবোর্ড দিয়ে তৈরি কম্পিউটার বা ল্যাপটপ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যাবে, এ কথা ভেবে আমি আনন্দিত ও গর্বিত। ‘ তিনি আশা প্রকাশ করেন, ওয়ালটন আগামী দিনে ডিজিটাল ডিভাইস জাতীয় সকল পণ্য দেশেই তৈরি করবে।
ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক এসএম জাহিদ হাসান বলেন, ল্যাপটপ এখন আর কোনো বিলাসী পণ্য নয়; বরং প্রযুক্তিভিত্তিক শিক্ষায় এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই বিষয়টি মাথায় রেখেই শিক্ষার্থীদের ব্যবহার উপযোগি সাশ্রয়ী মূল্যের ল্যাপটপ এনেছে ওয়ালটন। আশা করি, ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে ওয়ালটনের এই প্রয়াস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিশ্বের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান ইনটেল কর্পোরেশন, মাইক্রোসফট এবং বাংলাদেশের ওয়ালটন-এই তিন প্রতিষ্ঠানের যৌথ উদ্যোগে দেশের বাজারে একে একে আসছে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ। ওয়ালটন ল্যাপটপের প্যাশন ও টেমারিন্ড সিরিজে এবার যুক্ত হলো আরো একটি করে মডেল। উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ও মাল্টি টাস্কিং বৈশিষ্ট্যের নতুন এই ল্যাপটপ দেখতে স্লীম এবং গতিও অনেক বেশি। অন্যান্য ব্র্যান্ডের তুলনায় দামও ২০-৩০ শতাংশ সাশ্রয়ী। অনুষ্ঠানে একই সঙ্গে ওয়ালটন ল্যাপটপের ওয়ারেন্টির সময় ১ বছর থেকে বাড়িয়ে ২ বছরে উন্নীত করার কথাও জানানো হয়। দেশব্যাপী ক্রেতারা সহজ শর্তে ১২ মাসের কিস্তিতে কিনতে পারবেন ওয়ালটন ল্যাপটপ।
সকল শ্রেণীর শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এখন প্যাসন সিরিজের নতুন মডেলের ল্যাপটপটি কিনতে পারবেন ২৩,৯৯০ টাকায়। এতে রয়েছে ৫০০জিবি হার্ডডিস্ক ড্রাইভ, ৪জিবি ডিডিআর৩ এল র‌্যাম। যা ল্যাপটপে প্রয়োজনীয় কাজ, ভিডিও ও মিউজিক চালানোর সময় অপারেটরকে দিবে উচ্চ গতির রোমাঞ্চকর অনুভূতি। আরো রয়েছে ডিভিডি মাল্টি এবং হাই ডেফিনিশন অডিও।
অপরদিকে, টেমারিন্ড সিরিজে যুক্ত নতুন মডেলের ল্যাপটপের দাম পড়বে ২২৯৯০ টাকা। এতে রয়েছে ৫০০জিবি হার্ডডিস্ক ড্রাইভ, ৪জিবি ডিডিআর৩ এল র‌্যাম। এতেও রয়েছে হাই ডেফিনিশন অডিও।
ওয়ালটনের এডিশনাল ডিরেক্টর ও ল্যাপটপ প্রজেক্টের ইনচার্জ মো. লিয়াকত আলী বলেন, নতুন মডেলের ল্যাপটপগুলো স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের ব্যবহার উপযোগি। এগুলোর মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা অনায়াসেই প্রোগামিং, ওয়েব ডিজাইন, আউটসোর্সিং, বিভিন্ন এ্যাসাইনমেন্ট, প্রেজেন্টেশন এবং ডিজিটাল ই-বুকসহ অসংখ্য কাজ সম্পন্ন করতে পারবে।
তিনি আরো বলেন, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দীর্ঘদিনের চাহিদা ছিল– বাজারে তাদের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে উচ্চমানের ল্যাপটপের। সাশ্রয়ী মূল্যে নতুন মডেলের দুটি ল্যাপটপ বাজারজাতকরনের মাধ্যমে তাদের দীর্ঘদিনের চাহিদা পূরন করছে ওয়ালটন।

সূত্র: প্রথম আলো

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *