কেন সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন বা এস,ই,ও প্রয়োজন

কেন সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন বা এস,ই,ও প্রয়োজনঃ

আপনার যদি একটা ওয়েবসাইট বা ব্লগ থাকে এবং সেখানে যদি কোন ভিজিটর না থাকে তাহলে সেই ওয়েব সাইটের কোন মূল্য আছে? অনেকে বলবেন আমার তো ফেসবুক বা টুইটারে অনেক বন্ধু আছে তাদেরকে দিলেই তো আপনার সাইটে অনেক ভিজিটর বা ট্র্যাফিক চলে আসবে, তাহলে আবার এস,ই,ও (SEO) প্রয়োজন কেন। তাদের বলবো আপনার সোশ্যাল সাইটে বা ফেসবুকে সর্বোচ্চ ৪ থেকে ৫ হাজার বন্ধু থাকুক বা আরও বেশি, কিন্তু তাদের মাধ্যমে আপনি আপনার ব্লগে কতো ভিজিটর নিয়ে আসবেন। ঐ ১০০-২০০ ভিজিটর কি আপনার সাইটের জন্য যথেষ্ট? কিন্তু আপনার সাইটেতো হাজার হাজার একদিন লাখ লাখ ভিজিটর লাগবে, না হলে তো আপনার সাইটের আসল উদ্দেশ্য পূর্ণ হবে না। সেহেতু আপনার সাইটের র‍্যাঙ্ক এবং ভিজিটরের জন্যই সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন বা এস,ই,ও করা লাগবে। আরেকটা কথা সোশ্যাল সাইটে আপনার ওয়েব সাইটের বিভিন্ন কন্টেন্ট দিয়ে ভিজিটর নিয়ে আসার পদ্ধতিও এস,ই,ও এর একটি ছোট্ট পার্ট।

*** এসইও কত প্রকার ??

উত্তর : ২ প্রকার ।

** কি কি ? উত্তর : অন- পেইজ এসইও এবং অফ-পেইজ এসইও

*** অন-পেইজ এসইও কি ?

আগেই বলেছি যে একটি সাইট তৈরি করার আগে অন-পেইজ এসইও শুরু হয়ে যায় । প্রথমে আপনি একটি টপিক সিলেক্ট করবেন । আমরা ধরে নিলাম যে আপনি সফটওয়্যার টপিক নিয়ে একটি সাইট করবেন । এখন টপিক সিলেক্ট করার পর আপনার কাজ কি ? আপনার উত্তর কি ? ডোমেইন ! নাহ , আমার মতে ডোমেইন না । আপনি ডোমেইন নেওয়ার আগে কাজ হল কি-ওয়ার্ড রিসার্চ করা । এখন আপনি যদি বলেন কী-ওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করবেন ? এটার উত্তর এখন দিতে পারবোনা কারন কী-ওয়ার্ড রিসার্চ তত সহজ কাজ নয় । কি-ওয়ার্ড রিসার্চ নিয়ে সামনে আর একটি পোস্ট লিখবো । আর হুম , কী-ওয়ার্ড রিসার্চও কিন্তূ অন-পেইজ এসইও আর আয়তায় পড়ে। এখন আপনি কী-ওয়ার্ড রিসার্চ করে একটি কি-ওয়ার্ড সিলেক্ট করলেন যে , freeware software download । এখন আপনার কাজ হল এই কী-ওয়ার্ডটির ডোমেইন খালি আছে কিনা দেখা । যদি ডোমেইন খালি পেয়ে যান তাহলেতো কথাই নাই , চোখ বন্ধ করে ডোমেইন নিয়ে নিবেন । এর পরের কাজ হল আপনি আপনার সাইটের জন্য আরও কয়েকটি কী-ওয়ার্ড সিলেক্ট করা সফটওয়্যারে রিলেটেড। তারপর সাইটের জন্য সুন্দর একটি টাইটেল সিলেক্ট করা এবং সুন্দর একটি সাইটের বর্ণনা করা যাতে আপনার সাইট সম্পর্কে সম্পূর্ণ বর্ণনা দিবেন। এবার প্রয়োজন সাইটের জন্য ম্যাটা কি-ওয়ার্ড এবং ম্যাটা ডেচক্রিপ্সন দেওয়া। তারপরের কাজ হল সুন্দর ইউনিক পোস্ট করা কমপক্ষে ২০০ শব্দের এবং প্রত্যেক পোস্টের সাথে পোস্ট রিলেটেড ইমেজ ব্যবহার করবেন । পোস্টের সাথে ইমেজ Alt ব্যবহার করবেন। পোস্টের সাথে আপনি যে সব কি-ওয়ার্ড উইস করবেন কয়েকটি কি-ওয়ার্ড পোস্টের মধ্যে উইস করবেন। পোস্টের মাঝে h2 ট্যাগ ব্যবহার করবেন তবে অতিমাত্রায় করবেন না। সেই সাথে অবশ্যই Andhor text তৈরি করবেন । এতক্ষণ যে বর্ণনা দিলাম এই গুলোই হল অন-পেইজ এসইও , আমরা সবার বুঝার সুবিধার্থে একটি সামারি দিলাম।

  1. সাইট তৈরি করা আগে ভালো করে ভাবনা
  2. কী-ওয়ার্ড রিসার্চ
  3. ডোমেইন সিলেক্ট করা
  4. সাইটের ম্যাটা কি- ওয়ার্ড এবং ডিস্ক্রিপশন
  5. এবং পোস্টিং করার যে সব টিপস দিলাম তা ব্যাবহার করবেন ।

** অফ-পেইজ এসইও কি ?

আজকে সময় একটু কম তাই অফ-পেইজ এসইও নিয়ে বিস্তারিত লিখতে পারছিনা , পড়ে ফ্রী হয়ে বিস্তারিত পোষ্ট লিখবো। এখন জাস্ট সামারী দিলাম।

  1. সোশ্যাল বুকমার্ক
  2. ফোরাম পোস্টিং
  3. ডিরেক্টরি সাবমিশন
  4. RSS সাইটে সাবমিশন
  5. ব্লগ কমেন্ট
  6. আর্টিকেল সাবমিশন ইত্যাদি

এছাড়া আরও অনেক ধরনের অফ-পেইজ অপ্টিমাইজেশন আছে ।

এস ই ও কিভাবে করবেন??

প্রথমেই বুঝতে ও জানতে হবে গুগলকে এসইও কি ধরনের কাজ করতে হবে তা পুরোটাই গুগলের উপর নির্ভরশীল। গুগল কিভাবে কাজ করে সেই বিষয়টা জানা খুবই জরুরী। আসলে জানা নয় বুঝাটা খুবই দরকার। আপনি যদি গুগলে কিভাবে ওয়েব পেইজ গুলোকে খুজে পায়, কিভাবে তা মজুদ করে আর যখন কেউ কোন কিওয়ার্ড দিয়ে কোন তথ্য অনুসন্ধান করে তা কিভাবে গুগল তা দেখায় এই বিষয় গুলো পরিস্কার ভাবে বুঝতে পারেন তাহলে এসইও শিখার ভিত্তিটি তৈরি করে ফেললেন। কিছু গুরুত্বপূর্ণ সংযুক্তিঃ

  1. গুগল কিভাবে কাজ করে।
  2. কিভাবে সার্চ ইঞ্জিন কাজ করে।
  3. কিভাবে সার্চ কাজ করে তার ভেতরে গল্প।

ওয়েব সাইটের কোড কেমন হবে, কনটেন্ট কেমন হওয়া উচিত , নেভিগেশন কেমন হওয়া উচিত, ইউজার এক্সপেরিয়েন্সের (সাইটে পাঠক আসার পর তার যে অনুভুতি ও অভিজ্ঞতা হয়) এই সব বিষয়ে গুগলে চাওয়া ও পরামর্শগুলো কি সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে আপনার খুব ভালো ধারনা তৈরি করে নিতে হবে।গুরুত্বপূর্ণ সংযুক্তিঃ

  1. গুগল কোয়ালিটি গাইড লাইন ।
  2. যেভাবে গুগল কোয়ালিটি গাইডলাইন মেনে চলবেন ।

এই বিষয় গুলো সম্পর্কে জানতে গুগল সাইটে বিভিন্ন তথ্য রয়েছে। গুগলের ফোরামে এই বিষয়গুলো নিয়ে প্রতিনিয়তই আলোচনা হয় । নিয়মিত এই ফোরামে অংশগ্রহন করেও গুগল সম্পর্কে পরিস্কার একটা ধারনা তৈরি হবে। এছাড়া ম্যাট কাটের ব্লগ ও ইউটিউব চ্যানেল বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ভিডিও নিয়মিত প্রকাশ হয়।সেই ভিডিও গুলো গুগল সম্পর্কে জানতে ও বুঝতে আপনাকে সহায়তা করবে। গুরুত্বপূর্ণ সংযুক্তিঃ

  1. এসইও চ্যাট ফোরাম।
  2. ওয়েবমাস্টার ওয়ার্ল্ড ফোরাম।
  3. গুগল ফোরাম।
  4. মজ কমিউনিটি।

এসইও ও ওয়েবসাইট সংক্রান্ত অনেক গুগলের দৃষ্টিভঙ্গি , নিয়ম ও চাহিদা নিয়ে বিভিন্ন ব্লগে বিভিন্ন ভাবে উপাস্থাপন করে অনেকেই লেখে থাকেন। সেই লেখাগুলোও আপনাকে গুগল সম্পর্কে বুঝতে সাহায্য করবে। এছাড়া এসইও ফোরাম গুলোতে যে আলোচনা হয় তাও অনেকাংশে আপনাকে সাহায্য করবে।গুরুত্বপূর্ণ সংযুক্তিঃ

  1. মজ
  2. সার্চ ইঞ্জিন ল্যান্ড
  3. সার্চ ইঞ্জিন ওয়াচ
  4. এসইও বুক
  5. সার্চ ইঞ্জিন জার্নাল
  6. সার্চ ইঞ্জিন গাইড

গুগলকে যত ভালো ভাবে জানতে ও বুঝতে পারবেন তত ভালো এসইও আপনি শিখতে পারবেন আর ততই সফল ও উজ্জ্বল হবে আপনার এসইও ক্যারিয়ার। [সংযুক্তি গুলা সম্পর্কে সার্চ দিয়ে যেনে নিয়েন।।]

এস ই ও এর সাফল্য

এস,ই,ও কেন শিখবেনঃ প্রতিদিন হাজার হাজার ওয়েব সাইট তৈরি হচ্ছে এই ভার্চুয়াল জগতে। আর প্রত্যেক ওয়েব সাইটের সার্চ ইঞ্জিনে প্রথম পেজে আসতে এস,ই,ও করা দরকার। আর আপনি যদি প্রকৃত এস,ই,ও অপ্টিমাইজার হন তাহলে আপনি মাসে মিনিমাম ৫০ হাজার ইনকাম করতে পারেন প্রতিদিন ৫/৬ ঘণ্টা সময় দিয়ে। কিন্তু আপনাকে এই এস,ই,ও এর মুল শিক্ষা নিতে হবে। যা আপনাকে এই অপ্টিমাইজেশন জগতে গুরু বানাতে পারে। আর এই গুরু হয়ে আপনি পেতে পারেন ষ্ট্যাণ্ডার্ড লাইফ, ইনকাম এবং সন্মান। এস,ই,ও এর বর্তমান চাহিদা কেমন? একজন এস,ই,ও অপ্টিমাইজার প্রতি মাসে কেমন ইনকাম করে এসব নিয়ে আরও বিস্তারিত পোস্ট পাবেন ধীরে ধীরে।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *