We're on facebook! Like us
Search
Posted by Rony, February 16, 2017

কম্পিউটিং

কম্পিউটারের হার্ডডিষ্ক ভালো রাখার কয়েকটি উপায় জেনেনিন।

প্রিয় টেকস্পট এর পাঠক এবং টিউনারবৃন্দ কেমন আছেন সবাই ? আমি আজকে আপনাদের জন্য হার্ডডিষ্ক ভালো রাখার টিপস নিয়ে হাজির হয়েছি। কম্পিউটারের কয়েকটি প্রয়োজনীয় অংশের মধ্যে হার্ডডিষ্ক একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কম্পিউটারে যত ডেটা বা তথ্য রাখা হয় তা ষ্টোর করে রাখে হার্ডডিষ্ক। অথ্যাৎ হার্ডডিষ্কে ষ্টোরেজ ডিভাইজ বলা হয়। আর এই হার্ডডিষ্ক যদি নষ্ট হয়ে যায় তাহলে সকল ডেটা বা তথ্য হারিয়ে গেল।বিশেষ করে হার্ডডিষ্ক নষ্ট হওয়ার মূল কারণ অযন্ত। আসুন আমরা নিচের থেকে জেনেনেই কিভাবে আপনার হার্ডডিষ্ককে ভালো রাখবেন।

১। আপনি অবশ্যই ভালো মানের সার্জ প্রোটেকশন ইউপিএস কিনবেন। সার্জ প্রোটেকশন মূলত বাড়তি পাওয়ারকে কনট্রোল করে এবং আপনার ডিভাইস পর্যন্ত সেই এক্সেসিভ পাওয়ারকে পৌছাতে দেয় না। এর ফলে ঝড়-বৃষ্টির দিনে বজ্রপাত বা খারাপ পাওয়ার সোর্স থেকে আপনার কম্পিউটার তথা হার্ড ড্রাইভকে সুরক্ষিত রাখবে। এক্সেসিভ পাওয়ার হার্ড ড্রাইভের ফাস্ট এবং কমপ্লিট ফেইলরের জন্য দায়ী। এছাড়াও, ইউপিএস থাকার ফলে বিদ্যুৎ চলে গেলেও আপনি ম্যানুয়ালি নিরাপদভাবে আপনার কম্পিউটারটি বন্ধ করতে পারবেন। ফলে শুধু হার্ড ড্রাইভই নয় বরং আপনার কম্পিউটারের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কম্পোনেন্টগুলোও সুরক্ষিত থাকবে।
২। কম্পিউটার ভালো রাখার জন্য অবশ্যই স্বাভাবিক তাপমাত্রায় আপনি কম্পিউটার রাখবেন।অন্তত এরকম যেন না হয় যেন হঠাৎ হঠাৎ আপনার সেই রুমটির তাপমাত্রা অস্বাভাবিক আকারে পরিবর্তন হচ্ছে। এছাড়া, খেয়াল রাখবেন এয়ার ভেন্টগুলোর সামনে যেন অবশ্যই কোন প্রকার অবস্টাকল না থাকে। ডেস্কটপের এয়ার কুলার সিস্টেম বেশ বড় এবং খোলামেলা হলেও ল্যাপটপের ক্ষেত্রে ছোট্ট এয়ার ভেন্ট থাকায় ল্যাপটপের ক্ষেত্রে বিশেষ খেয়াল রাখা উচিৎ।
৩। খেয়াল করলেই দেখতে পাবেন আমাদের কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেমে পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ফিচার রয়েছে। এগুলো অনেকেই অপ্রয়োজনীয় মনে করেন, কিন্তু এগুলো মোটেও অপ্রয়োজনীয় নয়, বরং এগুলোর মাধ্যমেই আপনার কম্পিউটারটি তথা হার্ড ড্রাইভটি স্লিপ মোডে যাবে বা হাইবারনেট হবে তা নির্ধারন করা হয়। তবে আপনি যদি কাজ শেষে সম্পূর্ণভাবে কম্পিউটার বন্ধ করে রাখতে পারেন তবে সবচাইতে ভালো হয়। আর রাতে কাজ শেষে সম্পূর্ণভাবে শাটডাউন করার অভ্যাসটা তৈরি করে নেয়াটাই শ্রেয়।
৪। এক্সটার্নাল হার্ড ড্রাইভের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত খেয়াল রাখা উচিৎ। কম্পিউটারে কানেক্ট করার সময় অতিরিক্ত সাবধানতা বজায় রাখা, সেইফলি হার্ড ড্রাইভটি রিমুভ করা – ইত্যাদি সহজ কাজগুলোর মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই আপনার এক্সটার্নাল হার্ড ড্রাইভের লাইফ কিছুটা হলেও এক্সটেন্ড করতে পারবেন।
৫। মাঝে মধ্যেই ড্রাইভ মনিটর করা উচিৎ। ডিফ্র্যাগমেন্ট, ডিস্ক এরর চেকিং ইত্যাদি আপনার হার্ড ড্রাইভের লাইফ এক্সটেন্ড করতে সাহায্য করবে।
এই ছিল আজকের আয়োজন। উপরের পদ্ধতিগুলো সব ক্ষেত্রেই আপনার হার্ড ড্রাইভের লাইফ হয়তো এক্সটেন্ড করতে পারবেনা কিন্তু আপনার হার্ড ডিস্ককে সুস্থ রাখতে সাহায্য করবে অবশ্যই।

Related Post
  1. তৈরি করুন একটি অদৃশ্য ফোল্ডার

Comments

Leave a Reply




Categories

Services

MIDNIGHT BLUE BY Huzaifa Ham